দারুণ শিক্ষা হয়েছে: জিম্বাবুয়ের কাছে হেরে ডমিঙ্গো

সম্প্রতি টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে ভরাডুবি হলেও ওয়ানডেতে দারুণ ছন্দে ছুটছিল বাংলাদেশ। কিন্তু জিম্বাবুয়ে সিরিজে এবার ওয়ানডে ক্রিকেটেও ধস নামল। টানা দুই ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের কাছে হারল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পরাজয়কে মেনে নিয়ে শেখার জিনিসগুলোই গ্রহণ করতে চান বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দীর্ঘ ৯ বছর পর সিরিজে হেরে যাওয়ার লজ্জা পেয়েছে বাংলাদেশ। সবশেষ ২০১৩ সালের মে মাসে বাংলাদেশকে ওয়ানডে সিরিজে হারিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। এত বছর নিজেদের ফের বাংলাদেশকে হারানোর স্বাদ পেয়েছে জিম্বাবুয়ে। ২০১৩ সালে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে হেরেও ঘুরে দাঁড়িয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল জিম্বাবুয়ে। এবার তিন ম্যাচের সিরিজ এক ম্যাচ হাতে রেখেই জিতল তারা।

এ ছাড়া তৃতীয় ওয়ানডে জিতে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করার হাতছানিও আছে জিম্বাবুয়ের সামনে। সেই লক্ষ্যে আগামী ১০ আগস্ট তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে স্বাগতিকরা। টানা দুই ওয়ানডে জেতার জন্য ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে জিম্বাবুয়েকেই কৃতিত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। প্রশংসা করেছেন টানা দুই ম্যাচেই সেঞ্চুরি করা সিকান্দার রাজাকে।

এদিকে ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘আত্মতুষ্টির কোনো ব্যাপার ছিল না দলে। কারণ, আমরা জানতাম নিজেদের কন্ডিশনে ওরা কতটা বিপজ্জনক। গত বছর আমরা ৩-০তে জিতলেও দুটি ম্যাচে জোর লড়াই হয়েছিল। আত্মতুষ্টি তাই কখনোই আসেনি আমাদের। জিম্বাবুয়েকে কৃতিত্ব দিতে হবে, বিশেষ করে সিকান্দার রাজাকে। অসাধারণরকম ভালো খেলছে সে। চাপের মধ্যে দুর্দান্ত দুটি সেঞ্চুরি করে। সে ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে আছে। চারটি শতরান হয়েছে ওদের। ওই ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব দিতে হবে। ওরা আমাদের উড়িয়ে দিয়েছেন এই দুটি ম্যাচে।’

কোচ বলেছেন, ‘গত বছর দেড়েকের পারফরম্যান্সে ওয়ানডে দলের সমালোচনা করা কঠিন। অসাধারণ কিছু ফল, দারুণ কিছু জয় ওরা পেয়েছে। তবে অনেক কাজ করার বাকি আছে ব্যাটিং ও বোলিংয়ে। জিম্বাবুয়ের চারটি শতরান আছে, আমাদের একটিও নেই। আমাদের ৩০, ৪০ রানের ইনিংস আছে, ৫০ আছে। কিন্তু শতরান করতে হবে, ম্যাচ জেতানো ইনিংস লাগবে। কোচিং স্টাফ হিসেবে আমাদের জন্য ও ক্রিকেটারদের জন্য শিক্ষা হয়েছে। বিশ্বকাপের এখনও প্রায় বছর দেড়েক সময় বাকি আছে। সৌভাগ্যবশত, এই খেলাগুলোর কোনো পয়েন্ট নেই। আমাদের জন্য তাই এটিকে দারুণ শিক্ষণীয় অভিজ্ঞতা হিসেবে নিতে হবে এই সিরিজ।’