অসুস্থ মাকে দেখতে গিয়ে সড়কে প্রাণ গেল স্ত্রী-ছেলেসহ বারডেম চিকিৎসকের

অসুস্থ মাকে দেখতে যাওয়ার পথে সড়কে প্রাণ গেল রাজধানীর বারডেম হাসপাতালের চিকিৎসকের। শনিবার (১৪ মে) বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে কাশিয়ানী উপজেলার ফুকরা ইউনিয়নের দক্ষিণ ফুকরা এলাকায় বাস-প্রাইভেটকারের সংঘর্ষে আটজন নিহত হন।

নিহতদের মধ্যে আছেন ঢাকা বারডেম হাসপাতালের চিকিৎসক ও গোপালগঞ্জ শহরের বটতলা এলাকার প্রফুল্ল কুমার সাহার ছেলে ডা. বাসুদেব কুমার সাহা (৫২), তার স্ত্রী শিবানী সাহা (৪৮) ছেলে আহসান উল্লাহ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইইই বিভাগের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল সাহা (১৯)। এছাড়া তাদের গাড়ি চালক আজিজুর ইসলামও (৪৪) নিহত হয়েছেন। তবে পরিবারের সঙ্গে গোপালগঞ্জ না যাওয়ায় ডা. বাসুদেবের একমাত্র কন্যা বেঁচে গেছেন বলে জানা গেছে।

বারডেম হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, অসুস্থ মাকে দেখতে বাড়ি যাচ্ছিলেন ডা. বাসুদেব। কিন্তু বাড়ি পৌঁছানোর মাত্র আধা ঘণ্টা আগে সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরেছে তার প্রাণ। একই সঙ্গে তার স্ত্রী ও ছেলেও পাড়ি জমালেন না ফেরার দেশে।

এদিকে বাড়ি যাওয়ার পথে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পরিবারের সদস্যদের একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন ডা. বাসুদেব। ছবিতে দেখা যায়, তারা ফেরিতে দাঁড়িয়ে আছেন। ছবি পোস্ট করার চার ঘণ্টা পর দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল তাদের।

ডা. বাসুদেব সাহা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ৩১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি বারডেম হাসপাতালের এনেসথেসিয়া বিভাগে কর্মরত ছিলেন।

ভাটিয়াপাড়া হাইওয়ে থানা পুলিশের এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, পিরোজপুরে মঠবাড়িয়া থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা রাজিব পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা প্রাইভেটকার ও কাশিয়ানী সদর থেকে ছেড়ে আসা মটরসাইকেলের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়।

দুর্ঘটনায় আটজন নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৩০ জন। খবর পেয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসকর্মী, ও স্থানীয়রা হতাহতদের উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল ও কাশিয়ানী ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করে।