অথচ গাজায় আগ্রাসনের সময় ইসরায়েলের পক্ষ নিয়েছিলেন জেলেনস্কি

ইউক্রেনে দফায় দফায় হামলা চালাচ্ছে রুশ সেনাবাহিনী। রুশ সেনাবাহিনী তিন দিক থেকেই ইউক্রেনকে ঘিরে রেখেছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশ ও দেশের মানুষদের বাঁচাতে বিদেশি মিত্রদের কাছে সাহায্য চেয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

রাশিয়ার এই আগ্রাসনী আচরণে জেলেনস্কি নিজেদের দুর্ভোগের পরিস্থিতি তুলে ধরে একের পর এক টুইট করে যাচ্ছেন। অথচ গত বছর ইসরায়েলি দখলদাররা যখন গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়েছিল সে সময় তিনি ইসরায়েলের পক্ষ নিয়েছিলেন।

ইসরায়েলি দখলদারদের মোকাবিলায় ফিলিস্তিনি যোদ্ধাদের পাল্টা হামলার নিন্দা করেছিলেন ইউক্রেনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। তিনি ওই যুদ্ধে ইসরায়েলকেই ভুক্তভোগী বলে মন্তব্য করেছিলেন।

সে সময় টুইট বার্তায় তিনি বলেছিলেন, ইসরায়েলের আকাশ ক্ষেপণাস্ত্রে ছেয়ে গেছে। কয়েকটি শহরে আগুন লেগেছে। অনেকে ভুক্তভোগী। আহত হয়েছেন বহু মানুষ। অনেক ট্র্যাজেডি। শোক আর দুঃখ ছাড়া এসব দেখা অসম্ভব। জনজীবনের স্বার্থে অবিলম্বে এ উত্তেজনা বন্ধ করা প্রয়োজন।

গত বছর ফিলিস্তিনে যা হয়েছিল এবার ইউক্রেনে যেন ঠিক তাই হচ্ছে। রুশ বাহিনীর আক্রমণে ইউক্রেনের রাজপথ রক্তের বন্যায় ভাসছে। এমন পরিস্থিতিতে আবারও আলোচনায় এসেছে দখলদার ইসরায়েলকে সমর্থন দেওয়া জেলেনস্কির সেই টুইট।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১০ মে থেকে ফিলিস্তিনে হামলা চালায় ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী। তাদের হামলার প্রতিবাদে রকেট হামলা চালায় ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ গোষ্ঠী হামাস। টানা ১১ দিনের এই হামলায় ফিলিস্তিনের ২৬০ জন মারা যান। এর মধ্যে ৬৭ জনই শিশু। অন্যদিকে ফিলিস্তিনের পাল্টা হামলায় মারা যান ১২ ইসরায়েলি।