মুহাম্মাদ সা. বিশ্বমানবতার জন্য সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ শিক্ষক

465

আল্লাহ মহান। তাঁর দয়ার কারনেই এই সুন্দর পৃথিবীতে আমাদের প্রিয় নবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) এর আবির্ভাব ঘটেছিল। মুহাম্মাদ (সা) ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন আরাম ও সুখের জীবন। তিনি যেমন সাহসী ও অকুতোভয় ছিলেন, তেমনি ছিলেন কোমল মনের মানুষ। তাঁর ব্যাক্তিত্বের প্রভাবে ইসলামের বিস্তার হয়েছে।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর জীবনের প্রতিটি কাজই মানবজাতির জন্য অনুসরণীয়। তাঁর অর্থনৈতিক জীবন, রাজনৈতিক জীবন, পারিবারিক জীবন, সামাজিক জীবন এমনকি রাষ্ট্রীয় ও আন্তর্জাতিক নীতিও আমাদের জন্য এক অনন্য তুলনাহীন আদর্শ।

এসব বিষয়ে তিনি বিশ্বমানবতার জন্য সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ শিক্ষক। আল্লাহ তাআলা তাঁকে এ বিশ্বজাহানে সবার জন্য রহমত করে পাঠিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা বলেন-

(ওহে রাসুল!) আমি আপনাকে বিশ্ববাসীর জন্যে রহমতস্বরূপই পাঠিয়েছি।’ (সুরা আম্বিয়া : ১০৭)

তিনি শুধু মুমিন মুসলমানের জন্যই রহমত হিসেবে আসেননি বরং গোটা বিশ্ববাসীর জন্য রহমতস্বরূপ মুক্তির বাণী নিয়ে এসেছেন।

সুতরাং যারাই মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিয়ে জীবন ব্যবস্থা ও তার আদর্শকে ধারণ করবে তারাই দুনিয়ার জীবনে যেমন শান্তি পাবে। পাশাপাশি তার পুরো জীবন ব্যবস্থা তথা ইসলামে বিশ্বাস স্থাপন করলে ঈমানদার বান্দা হিসেবে দুনিয়া ও পরকালে হবে সফলকাম।