যাত্রীর কাশির পর বাসচালকের মৃত্যু

406

একজন বাসযাত্রী কাশি দিচ্ছিলেন। ফেসবুক লাইভে এসে এমন করতে মানা করেছিলেন ওই বাসের চালক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই বাসচালক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

জেসন হারগ্রোভ নামের ৫০ বছর বয়সী ওই মার্কিন নাগরিক ১ এপ্রিল (কভিড-১৯) এ আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এর দুই সপ্তাহ আগে হারগ্রোভের ডেট্রয়েট বাসে একজন যাত্রী মুখ না ঢেকে তার ওপর পাঁচবার কাশি দেয়। এসময় তিনি ওই যাত্রীকে তার মুখ ঢেকে কাশি দিতে অনুরোধ করেন।

ডেট্রয়েট বাসচালকদের ইউনিয়নের এক মুখপাত্র বলেছেন, ২১ মার্চ এই যাত্রীর সংস্পর্শে আসার চারদিন পর অসুস্থবোধ করা শুরু করেন হারগ্রোভ। তাকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়, সেখানে তার স্বাস্থ্য অবস্থার অবনতি ঘটলে বুধবার মর্মান্তিক মৃত্যু হয় তার।

তবে ওই কাশি দেয়া যাত্রীর কাছ থেকেই হারগ্রোভ করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু ডেট্রয়েটের মেয়র মাইক ডুগ্গান বলেন, গণপরিবহন কর্মীরা যে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে, ওই মর্মান্তিক মৃত্যু দেখা দেখিয়ে দিয়েছে।

ডুগ্গান বৃহস্পতিবার বলেন, আমি জানি না আপনি হারগ্রোভের ভিডিও দেখে কীভাবে না কেঁদে থাকতে পারবেন। তিনি জানতেন যে এটি গুরুতরভাবে নেয়নি এমন একজনের কারণে তার জীবন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে এবং এখন তিনি আর নেই।

ওই যাত্রী কাশি দেয়ার কিছুক্ষণ পর সাড়ে আট মিনিটের ভিডিও করেন হারগ্রোভ। তিনি বলেন, আমরা সরকারি কর্মীরা সৎভাবে আমাদের পরিবারকে নিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছি। কিন্তু আপনি বাসে উঠে মুখ না ঢেকেই বেশ কয়েকবার কাশি দিলেন। আপনি জানেন যে আমরা মহামারির মধ্যে রয়েছি কিন্তু আপনার আচরণ বলে দিচ্ছে কিছু মানুষ এটাকে গুরুত্ব দিয়ে নেয়নি।