করোনাভাইরাস কি? জেনেনিন লক্ষণ, চিকিৎসা ও প্রতিকার

554

দু-তিন সপ্তাহ ধরে যে খবরটি সারা পৃথিবীতে আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে, তা হলো চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে ‘রহস্যজনক’ করোনাভাইরাস জনিত মহামারি। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কয়েক সপ্তাহে মা’রা গেছে ২২৩ জনেরও বেশি।

ভাইরাসটা কী?
করোনাভাইরাস হলো নিদুভাইরাস শ্রেণীর করোনাভাইরদা পরিবারভুক্ত করোনাভাইরিনা উপগোত্রের একটি সংক্রমণ ভাইরাস। এ প্রজাতির ভাইরাসের জিনোম নিজস্ব আরএনএ দিয়ে গঠিত। এর জিনোমের আকার সাধারণত ২৬ থেকে ৩২ কিলোব্যাসের মধ্যে হয়ে থাকে যা এ ধরনের আরএনএ ভাইরাসের মধ্যে সর্ববৃহৎ। ধীরে ধীরে তা মারাত্মক আকার ধারণ করে। যার থেকে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

জেনেনিন করোনা ভাইরাসের লক্ষণ সমূহঃ ইউনিভার্সিটি অফ এডিনবরার অধ্যাপক মার্ক উলহাউজ বলেছেন, “যখন আমরা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কাউকে দেখতে পাই, আমরা বোঝার চেষ্টা করি লক্ষণগুলো কতটা মারাত্মক। এটা ঠাণ্ডা লাগার লক্ষণগুলোর চেয়ে একটি বেশি, সেটা উদ্বেগজনক হলেও, সার্সের মতো অতোটা মারাত্মক নয়”

করোনাভাইরাসের কিছু প্রাথমিক লক্ষণ রয়েছে। তবে এই লক্ষণগুলো খুবই সাধারণ।
১. সর্দি-কাশি ।
2. মাথাব্যথা ।
3. নাক দিয়ে পানি পড়া ।
4. গলা ব্যথা ।
5. শ্বাসকষ্ট ও জ্বর হয়ে থাকে।

কীভাবে ছড়ায়?
১. এই ভাইরাস একজনের থেকে আরেকজনের মধ্যে ছড়ায়।
২. শারীরিক ঘনিষ্ঠতা এমনকি করমর্দন থেকেও এই রোগ ছড়াতে পারে।
৩. রোগী জিনিস ধরার পর ভালো করে হাত না ধুয়ে চোখ, মুখ, ও নাকে হাত দিলে এই রোগ ছড়াতে পারে।
৪. হাঁচি-কাশি থেকেও এই রোগ ছড়াতে পারে।

করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধ সমূহঃ
১. রোগী কাছ থেকে আসার পর ভালো করে হাত ধুতে হবে।
২. নাক-মুখ ঢেকে হাঁচুন, কাশুন।
৩. ডিম, মাংস ভালো করে রান্না করুন। রোগীর থেকে দূরে থাকুন।
৪. নিয়মিত হাত ধুয়ে পরিচ্ছন্ন রাখুন