Home বিশেষ প্রতিবেদন ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন মিতু!

ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন মিতু!

বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) রাত ৪টার দিকে নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস

দেন ডাক্তার মুসতাফা মুরশেদ আকাশ। সেখানে নিজের আত্মহত্যার কথা জানান তিনি।

স্ট্যাটাসে নিজের স্ত্রীর একাধিক বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা এবং ছবি ও এসএমএসের স্ক্রিন শট পোস্ট করেন তিনি। পোস্টে আত্মহত্যার জন্য নিজের বউকে দায়ী করেন। পাশাপাশি শ্বশুর শাশুড়িকেও দায়ী করেন তিনি।

এরপর বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) ভোর ৫ টার দিক চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার ডি ব্লকের ২ নম্বর রোডের ২০ নম্বরের নিজ বাসায় শরীরে ইনজেকশন পুশ করে আত্মহত্যা করেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ডা. তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, নিজের বিরুদ্ধে উঠা বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের একাধিক অভিযোগ তিনি একজনের জেরার মুখে স্বীকার করে নিয়েছেন।

ওই ভিডিওতে অস্বাভাবিক অবস্থায় থাকা মিতুর মুখের এক কোণে দেখা গেছে রক্ত, মারধরের চিহ্ন।

স্বামী ডা. মোস্তফা মোরশেদ আকাশের আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে নগরের নন্দনকানন এলাকার এক আত্মীয়ের বাসা থেকে মিতুকে আটক করে পুলিশ।

মিতুকে আটকের বিষয় জানাতে শুক্রবার নগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মিতুকে আনা হলেও তাকে সংবাদকর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হয়নি।

তবে সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (উত্তর) মিজানুর রহমান বলেন, আকাশের মৃত্যুর আগে ঝগড়া-ফ্যাসাদের একপর্যায়ে ওই বাসায় আকাশই মিতুর ভিডিওটি রেকর্ড করেছে। এটা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিতু বলেছে। তবে এটা আমরা ভেরিফাই করিনি।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে জানানো হয়, গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নগরের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার নিজের বাসায় বাথরুমে প্রবেশ করে ডা. আকাশ ইনজেকশনের মাধ্যমে নিজের শিরায় বিষ প্রয়োগ করে আত্মহত্যা করেন- বলে খবর পায় পুলিশ। এরপর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।